প্রথম পাতা » Featured » প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কুটুক্তি করায় কথিত ক্ষুব্ধ ডা. মকবুলের উপর মাগুরায় সন্ত্রাসি হামলা

প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কুটুক্তি করায় কথিত ক্ষুব্ধ ডা. মকবুলের উপর মাগুরায় সন্ত্রাসি হামলা

প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কুটুক্তি করায় কথিত ক্ষুব্ধ  ডা. মকবুলের উপর মাগুরায় সন্ত্রাসি হামলা

মাগুরা প্রতিদিন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কুটুক্তি করায় ক্ষুব্ধ মকবুল হোসেন জীবন আদালতে মামল‍া দায়ের করে বৃহস্পতিবার আদালত এলাকায় সন্ত্রাসি হামলার শিকার হয়েছেন। তিনি কথিত বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগারের সভাপতি এবং মাগুরা অক্সফোর্ড টেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগার, মাগুরা জেলা শাখার সভাপতি পরিচয়ে ডা. মকবুল হোসেন গত বছরের ২৪ অক্টোবর তারিখে মাগুরায় বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মিহির কান্তি মজুমদারের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মিহির কান্তি মজুমদার গত ৭ আগস্ট তারিখে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটাক্ষ করে নানা বক্তব্য প্রদান করে বলে অভিযোগ আনা হয়। এ ঘটনায় ডা. মকবুল হোসেন জীবন ক্ষুব্ধ হয়ে বিচার ও তার শাস্তির প্রার্থনা করে মামলাটি করেন। মাগুরা জেলা জজ আদালতের বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ফিরোজ মামুন মামলাটি আমলে নিয়ে আদালতে স্বশরীরে হাজির হওয়ার জন্য মিহির কান্তি মজুমদারের নামে সমন জারি করলে মিহির কান্তি মজুমদার বৃহস্পতিবার মাগুরায় সংশ্লিষ্ট আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিনে মুক্তি পান।

এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে মামলার কার্যক্রম শেষে মামলার বাদি মকবুল হোসেন জীবন আদালত প্রাঙ্গণ থেকে বের হলে মূল ফটকের সামনে পৌছলে ৮-১০ জন অজ্ঞাত যুবক তাকে মারধর ও লাঞ্ছিত করেন। এ সময় খবর পেয়ে মাগুরা সদর থানার এসআই মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাকে উদ্ধার করেন বলে মামলার বাদি মকবুল হোসেন অভিযোগ করেন। তিনি বলেন বিবাদী পক্ষের লোকজন তার উপর অতর্কিতে হামলা চালিয়েছে। তবে তাদের কারো নাম পরিচয় তার জানা নেই বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে বিবাদি পক্ষের আইনজীবি আশরাফ হোসেন লিটন বলেন, মকবুল হোসেন জীবন আওয়ামীলীগ সমর্থিত কোন ব্যক্তি বা পরিবারভুক্ত নন। তার পরিবার বরাবরই আওয়ামীলীগের রাজনীতি বিরোধী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত। তাছাড়া মাগুরায় বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগার নামে কোন সংগঠনের অস্তিত্ব খুজে পাওয়া যায়নি। অসৎ কোন উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার লক্ষ্যে তিনি এই মামলাটি হয়তো করেছেন। যে ঘটনায় ক্ষুব্ধ কেউ তার উপর হামলা করে থাকতে পারে। এ বিষয়ে মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজমল হুদা জানান, বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশি নিরাপত্তায় তাকে সেখান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তবে সুনির্দিষ্ট কোন অভিযোগ পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে অনুসন্ধানে জানা গেছে, মকবুল হোসেন একজন ধান্ধাবাজ প্রকৃতির মানুষ। নিজ স্বার্থ চরিতার্ করতেই তিনি মিহির কান্তি মজুমদারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo_image
সম্পাদক: জাহিদ রহমান
নির্বাহী সম্পাদক: আবু বাসার আখন্দ
প্রকাশক:: জাহিদুল আলম
যোগাযোগ:
পৌর সুপার মার্কেট ( দ্বিতীয় তলা), এমআর রোড, মাগুরা।
ফোন: ০১৯২১১৬১৬৮৭, ০১৭১৬২৩২৯৬২
ইমেইল: maguraprotidin@gmail.com