প্রথম পাতা » ব্রেকিং-নিউজ » মহম্মদপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের অপসারণের দাবিতে শিক্ষকদের বিক্ষোভ

মহম্মদপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের অপসারণের দাবিতে শিক্ষকদের বিক্ষোভ

মহম্মদপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের অপসারণের দাবিতে শিক্ষকদের বিক্ষোভ

মহম্মদপুর সংবাদদাতা : মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলা শিক্ষা অফিসার আব্দুস সালামের ঘুষ দুর্নীতির প্রতিবাদ ও তার অপসারণের দাবিতে উপজেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা বুধবার দুপুরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। একই সাথে অবিলম্বে তার অপসারণের দাবি জানিয়ে তারা উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার কাছে লিখিত দাবি জানিয়েছেন।

দুপুরে এ উপজেলার ১৩৪ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা উপজেলা সদরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মহম্মদপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। পরে তারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহীন হোসেনের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন।

বিক্ষোভরত শিক্ষকদের মধ্যে সদরের লাহুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মাহাবুবর রহমান শরীফ জানান, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালামের বেপরোয়া ঘুষ দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে শিক্ষকেরা চরম হয়রানি ও আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছেন। এ বিষয়ে তারা কর্মকর্তার নানা অনিয়ম-দুর্নীতির খতিয়ান তুলে ধরে জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগপত্রে তিনি ও কালীপদ রায় চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কমনীয় কিঙ্কর তেওয়ারীসহ বিশজন প্রধান শিক্ষক স্বাক্ষর করেন। শিক্ষা, প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, দুর্নীতি দমন কমিশনসহ বিভিন্ন উর্ধ্বতন দপ্তরে অভিযোগের অনুলিপি প্রেরণ করেন।

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা গেছে, গত ২০ সেপ্টেম্বর শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালাম দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা থেকে মাগুরার মহম্মদপুরে যোগদান করেন। যোগদান করার পর থেকেই বেপরোয়া ঘুষ বাণিজ্য শুরু করেন। উপজেলার ১৩৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ৬০০ শিক্ষক কর্মচারীর কাছ থেকে নানা কাজ আটকে দিয়ে তিনি অর্ধকোটি টাকা ঘুষ বাণিজ্য করেছেন বলে শিক্ষকদের অভিযোগ।

তাদের অভিযোগ আবদুস সালাম টাইম স্কেলের বকেয় বিল, সাবেক বেসরকারি শিক্ষকদের টাইম স্কেল, দপ্তরিদের বর্ধিত বেতন বিলে স্বাক্ষর করার আগে শিক্ষক প্রতি এ থেকে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত ঘুষ নেন। ফেব্রুয়ারি মাসে টাইম স্কেলের মিটিং দেরি করে মাথা পিছু ৪ হাজার টাকা করে আদায় করেন। ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকা ঘুষর বিনিময়ে প্রতিস্থাপন ছাড়াই শিক্ষক বদলী করেছেন বলে অভিযোগ থেকে জানা গেছে।

উপজেলা পর্যায়ে শিশু প্রতিযোগিতার আয়োজন না করেই তিনি চ্যাম্পয়ন তালিকা পাঠিয়ে বাদ্দের টাকা আত্মসাত্ করেন। বিনা কারণে শিক্ষকদের বদলীর ভয় দেখিয়ে টাকায় আদায় করেছেন বলে জানা গেছে। এছাড়া বিদ্যালয়ের বিভিন্ন সংস্কার কাজ ও শিক্ষা উপকরণ ক্রয়ের বিপরীতে সরকারি বরাদ্দের শতকরা ২০ ভাগ টাকা ঘুষ বাবদ জোর করে আদায় করেন বলে শিক্ষকেরা লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন।

শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালামের শাস্তি ও অপসারণের বিরুদ্ধে প্রাথমিকের শিক্ষকেরা প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন প্রধান শিক্ষক গাওয়াহীদ হোসেন, মাহাবুবর রহমান শরীফ, কমনীয় কিঙ্কর তেওয়ারী, মো. মুরাদ হোসেন. মো. আবু তাহের, মো. মশিউর রহমান, মো. ফসিয়ার রহমান ও রেজাউল করিম বাবু।

চিত্তবিশ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. গাওয়াহীদ হোসেন বলেন, শিক্ষা কর্মকর্তার ঘুষ বাণিজ্যে আমরা অসহায়। কোন কাজে কত ঘুষ তিনি প্রকাশ্যে বলে দেন। ঘুষ ছাড়া একটি কাজও তিনি করেন না। টাকা না দিলে ফাইল আটকে যায়, হতে হয় পদে পদে হয়রানি। প্রতিবাদ করলে বিদ্যালয় পরিদর্শণের নামে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়ে আবার ঘুষ দাবি করেন।

অভিযুক্ত মহম্মদপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালাম বলেন,‘পরো বিষয়টি ষড়যন্ত্র । একটি পক্ষের স্বার্থ রক্ষা করতে না পারলে তারা আমার বিরুদ্ধে লেগে যান।

মহম্মদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহীন হোসেন জানা, ‘প্রাথমিকের শিক্ষকেরা তাদের কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন। আমি বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয়কে জানিয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo_image
সম্পাদক: জাহিদ রহমান
নির্বাহী সম্পাদক: আবু বাসার আখন্দ
প্রকাশক:: জাহিদুল আলম
যোগাযোগ:
পৌর সুপার মার্কেট ( দ্বিতীয় তলা), এমআর রোড, মাগুরা।
ফোন: ০১৯২১১৬১৬৮৭, ০১৭১৬২৩২৯৬২
ইমেইল: maguraprotidin@gmail.com