প্রথম পাতা » Featured » শালিখার একটি গ্রাম থেকে হতদরিদ্রদের ১০ টাকা দরের ১২ বস্তা চাউল উদ্ধার

শালিখার একটি গ্রাম থেকে হতদরিদ্রদের ১০ টাকা দরের ১২ বস্তা চাউল উদ্ধার

শালিখার একটি গ্রাম থেকে হতদরিদ্রদের ১০ টাকা দরের ১২ বস্তা চাউল উদ্ধার

মাগুরা প্রতিদিন ডট কম : মাগুরার শালিখা উপজেলার দরি লক্ষ্মীপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে আজ বুধবার ভোরে প্রধানমন্ত্রীর খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর হতদরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ১২ বস্তা চাউল উদ্ধার করেছে পুলিশ। চাউলগুলো ওই উপজেলার ধনেশ্বরগাতি ইউনিয়নের হতদরিদ্রদের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছিল বলে জানা গেছে।

শালিখা থানার এসআই বিশারুল জানায়, এলাকাবাসির অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার ভোর রাত ৪টার দিকে শালিখা উপজেলার দরি লক্ষ্মীপুর গ্রামের রথিন বিশ্বাসের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। ওই বাড়ির একটি পরিত্যাক্ত ঘরের মধ্যে থাকা ১২ বস্তা চাউল উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ওই সময় বাড়িতে কেউ না থাকায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

এলাকাবাসি জানায়, মঙ্গলবার রাতে রহমত নামে এক ব্যক্তি একটি স্যালো ইঞ্জিন চালিত করিমন চালিয়ে ৪০ বস্তা চাউল নিয়ে দরি লক্ষ্মীপুর গ্রামের রথিনের বাড়িতে রেখে আসে। এ সময় নির্মল চক্রবর্তি নামে এক ব্যক্তি চাউল বোঝাই গাড়িটিকে পথ দেখিয়ে ওই বাড়িতে নিয়ে যায়। এ ঘটনার পর রাত সাড়ে ১২টার দিকে এলাকাবাসির পক্ষ থেকে শালিখা থানা পুলিশকে অভিযোগ জানানো হলেও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছায়নি। এই সুযোগে চাউল পাচারের সাথে জড়িতরা বাড়িটি থেকে চাউলগুলো সরিয়ে ফেলার চেষ্টা করে। তারপরও পুলিশ ভোর ৪টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌছে ১২ বস্তা চাউল উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

জাকারিয়া নামে স্থানীয় এক যুবক জানান, চাউলগুলো ধনেশ্বরগাতি ইউনিয়নের হতদরিদ্রদের অনুকুলে ১০ টাকা কেজি দরে বিতরণ করার কথা ছিল। কিন্তু ৩০ কেজি ওজনের ৪০ বস্তা চাউল ইউনিয়নের গরিব মানুষকে বঞ্চিত করে সরিয়ে ফেলা হচ্ছিল। তারপরও এলাকাবাসি খবর পেয়ে পুলিশকে জানালেও পুলিশ যথা সময়ে পৌছায়নি। যে কারণে তারা ২৫ বস্তা চাউল সরিয়ে ফেলার সুযোগ পায়।

এ বিষয়ে ধনেশ্বরগাতি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিমল শিকদার জানান, ১০ টাকা দরের চাল বিতরণে প্রথম দিকে কিছু অনিয়ম হয়েছিল। প্রকৃত হতদরিদ্রদের অনেকে বাদ পড়েছিল। কিন্তু আমি নিজে তদারকি করে ১৬২ জন হতদরিদ্রের তালিকা তৈরি করেছি। এই তালিকা অনুযায়ী দরিদ্র মানুষের মাঝে চাল বিতরণের কথা। কিন্তু তারপরও কিভাবে এই ঘটনা ঘটেছে সেটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তবে এ ঘটনার সাথে যারাই জড়িত থাক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo_image
সম্পাদক: জাহিদ রহমান
নির্বাহী সম্পাদক: আবু বাসার আখন্দ
প্রকাশক:: জাহিদুল আলম
যোগাযোগ:
পৌর সুপার মার্কেট ( দ্বিতীয় তলা), এমআর রোড, মাগুরা।
ফোন: ০১৯২১১৬১৬৮৭, ০১৭১৬২৩২৯৬২
ইমেইল: maguraprotidin@gmail.com