প্রথম পাতা » Featured » মাগুরার হিরু চেয়ারম্যানের নজর হিন্দু পরিবারের জমির দিকে

মাগুরার হিরু চেয়ারম্যানের নজর হিন্দু পরিবারের জমির দিকে

মাগুরার হিরু চেয়ারম্যানের নজর হিন্দু পরিবারের জমির দিকে

মাগুরা প্রতিদিন ডটকম (মহম্মদপুর) : মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নাগড়া বাজারের একটি অবৈধ ইটভাটার জন্য জমি না দেওয়ায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম হিরু মিয়ার রোশানলে পড়েছেন একটি হিন্দু পরিবার।

প্রশাসনের কাছে প্রতিকার চাওয়ায় এখন আরো বিপদগ্রস্ত পরিবারটি। মিথ্যা ডাকাতি মামলার ভয়ে পরিবারের সদ্যস্যদের কেউ কেউ এখন গ্রামছাড়া বলে জানা গেছে।

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নাগড়া বাজারের পাশে দীঘা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি সিরাজুল ইসলাম হিরু মিয়ার নাম পরিচয়হীন ইটের ভাটা। গত সাত বছর ধরে সাড়ে চার একর জমির উপর চলছে তার রেজিস্ট্রেশন বিহিন ভাটাটি। সরকারি কোষাগারে কোন প্রকার কর খাজনা না দেওয়ায় সেখান থেকে উপার্জন ভালই। এখন ভাটাটি বড় করা গেলে লাভের অংশ আরো বাড়বে। যে কারণে তার নজর এখন ভাটা সংলগ্ন শান্তিপদ সাহার ১ একর ৩২ শতক জমির উপর। হুমকি-ধামকি বা মামলা-মোকদ্দমা, যেভাবেই হোক জমিটি তার চাইই চাই।

এদিকে শান্তিপদ সাহার সংসারে পাঁচ ছেলে। সবাই গ্রাজুয়েট। চাকরি বাকরি করেন। কিন্তু চাষাবাদের জন্য তিন ফসলি সুন্দর জমি তার ওই একটিই। অথচ হিরু মিয়ার অবৈধ ইট ভাটার কারণে গত কয়েক বছর ধরে ফসলের ক্ষতি হচ্ছে। জমিতে নানাভাবে অত্যাচার চালানোর পর হিরু মিয়া এবার সরাসরি প্রস্তাব দিয়েছেন জমিটি তাকে দিতে হবে। কিন্তু শান্তিপদ সাহা সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে ওইজমি কোনভাবেই বেঁচবেন না। বিষয়টি জানিয়ে দেওয়ায় আওয়ামীলীগ নেতা হিরু মিয়া শান্তিপদ সাহা’র সন্তানদের নামে মিথ্যা ডাকাতি মামলা দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন। যে কারণে তিনি বাধ্য হয়ে মহম্মদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং জেলা প্রশাসকের কাছে প্রতিকার চেয়ে অভিযোগ দিয়েছেন। কিন্তু এতে আরো বিপাকে পড়েছেন বলে শান্তিপদ সাহা অভিযোগ করেছেন।

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নাগড়া গ্রামের শান্তিপদ সাহা বলেন, হিরু মিয়া গত নির্বাচনে দীঘা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেছেন। তাকে আমরাই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছি। অথচ জেতার পর এখন আমার সম্পত্তি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। জমি বেঁচবো না জানানোর পরও তিনি প্রায়ই আমার বাড়ির উপর এসে বসে থাকেন। বাজারে ঘাটে যেখানে দেখা হয় সেখানেই নাজেহালের চেষ্টা করেন। আমার ছেলেদের নামে মিথ্যা মামলা দেওয়ার হুমকি দেন লোক দিয়ে। আমি বুড়ো মানষ, যে কারণে বাধ্য হয়ে ছেলে রাজকুমারকে দিয়ে ডিসির কাছে অভিযোগ দিয়েছে। এতে তিনি আরো ক্ষেপে গিয়ে আমাকে হুমকি দিচ্ছেন। আমার ছেলে রাজকুমার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল-পিএইচডি করছে। কিন্তু চেয়ারম্যানের ভয়ে সে বাড়িতে আসতে পারে না।

মহম্মদপুর উপজেলার নাগড়া বাজার এবং ভাটা পার্শ্ববর্তি বিভিন্ন লোকজনের সাথে কথা বলে চেয়ারম্যান হিরু মিয়া, তার ঘনিষ্ট সহচর গোবিন্দ সাহাসহ আরো কয়েকজনের বিরুদ্ধে শান্তিপদ সাহার পরিবারকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়। তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম হিরু মিয়া জানিয়েছেন ভিন্ন কথা।

হিরু মিয়া বলেন, সাত বছর ধরে ভাটা চালাচ্ছি। অল্প জায়গায় বৈধভাবে ইটভাটা চালানো কষ্টকর। যে কারণে শান্তিপদ’র জমিটি হলে ফিক্সড চিমনির একটি বৈধভাটা তৈরি করা যাবে। যে কারণেই তার জমিটি চেয়েছি। কিন্তু তিনি দিতে চাননি। এতে আমার কোন ক্ষোভ নেই। তাই বলে তার পরিবারকে হুমকি ধামকি দিয়েছি এটি ডাহা মিথ্যা কথা।

বিষয়টি নিয়ে মাগুরা জেলা প্রশাসক মোহম্মদ আতিকুর রহমানের সাথে আলাপ করলে তিনি এ সংক্রান্ত লিখিত একটি অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে এ বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান। তবে এটি আইনগত বিষয় হওয়ায় জেলা প্রশাসকের চেয়ে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব বলে তিনি ওই পরিবারটিকে পুলিশের সহায়তা নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo_image
সম্পাদক: জাহিদ রহমান
নির্বাহী সম্পাদক: আবু বাসার আখন্দ
প্রকাশক:: জাহিদুল আলম
যোগাযোগ:
পৌর সুপার মার্কেট ( দ্বিতীয় তলা), এমআর রোড, মাগুরা।
ফোন: ০১৯২১১৬১৬৮৭, ০১৭১৬২৩২৯৬২
ইমেইল: maguraprotidin@gmail.com