প্রথম পাতা » সংবাদ প্রতিদিন » সমন্বয়হীনতার বৃত্তে মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগ

সমন্বয়হীনতার বৃত্তে মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগ

সমন্বয়হীনতার বৃত্তে মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগ

প্রতিদিন ডেস্ক: জাতীয় নির্বাচনসহ কোনো নির্বাচনেই সমন্বয়হীনতার বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগ। ফলে সব নির্বাচনেই কখনও বিদ্রোহী প্রার্থী কখনওবা একাধিক প্রার্থীর কারণে পরাজিত হতে হচ্ছে আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের। আর সমন্বয়হীনতার কারণে দলের অভ্যন্তরে ক্রমশই বাড়ছে আস্থাহীনতা এবং সংকট। কিন্তু এ বিষয়ের কোনো সুরাহাই হচ্ছে না। সমন্বয়হীনতা বর্তমানে এমন এক পর্যায়ে পৌঁছে গেছে যে, এখন আর কেউ কারো কথা শুনছে না। স্বভাবতই তৃণমূল পর্যায়ের এক ধরনের হতাশাও লক্ষ্য করা যাচ্ছে।
মাগুরা সদর উপজেলার উপ নির্বাচনে সমন্বয়হীনতার বিষয়টি যেনো আরও স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। আগামী ২১ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য এই নির্বাচনে মাগুরা জেলা বিএনপি সংবাদ সম্মেলন করে একক প্রার্থী ঘোষণা করতে পারলেও আওয়ামী লীগের চারজন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন এবং প্রতীকও বরাদ্দ পেয়েছেন। আওয়ামী লীগ থেকে একাধিক প্রার্থী অংশগ্রহণ করায় বিষয়টি টক অফ দা টাউনে পরিণত হয়েছে। অনেকেই মনে করছেন আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী মাঠে থাকলে বিএনপি প্রার্থী আলী আহম্মদ-এর জয়ের পথ আরও সুগম হবে। মূলত আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু নাসির বাবলু এবং আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রোস্তম আলী-এর মধ্যে সমঝোতা হলেই অন্য দুই প্রার্থী আর মাঠে থাকবে না শোনা যাচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত সমঝোতার কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষনেতারা এখনও নির্লিপ্ত অবস্থায় রয়েছে।
সর্বশেষ উপজেলা নির্বাচনে সমন্বয়হীনতার কারণেই ভয়াবহ পরাজয় বরণ করতে হয়েছিল আওয়ামী লীগকে। গোটা জেলাতে শক্তিশালী সংগঠন থাকা স্বত্তে¡ও অন্তকোন্দল এবং চরম সমন্বয়হীনতার কারণে মাগুরা সদর উপজেলাসহ সবখানেই পরাজয় বরণ করতে হয় আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের। সেই নিরিখে ধরে নেওয়া হয়েছিল মাগুরা সদর উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ হয়ত এবার আর সেই ভুল করবে না। দেখেশুনে একটি সুন্দর সমন্বয়ের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক পন্থায় জেলা আওয়ামী লীগ সদর উপজেলার উপ নির্বাচনে একক প্রার্থী ঘোষণা করবে। কিন্তু বাস্তব চিত্র হলো যে কাজটি বিএনপি করতে পেরেছে সে কাজটি করতে ব্যর্থ হয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ। যার নেতিবাচক প্রভাব ইতিমধ্যেই মাঠ পর্যায়ে পড়তে শুরু করেছে।
এদিকে বিএনপি একক প্রার্থী ঘোষণা করতে পারায় দলের নেতা-কর্মীদের মাঝে ইতিমধ্যেই এক ধরনের মনস্তাত্তি¡ক ঐক্য গড়ে উঠেছে। বিএনপি সমর্থকেরা দলীয় প্রার্থীর বাইরে ভোট প্রদান করবে না-এ বার্তা সকলের কাছে পৌছেও গেছে। সর্বশেষ উপজেলা নির্বাচনে মাগুরা সদর উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী নাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ৭২ হাজার ৩৩৪ হাজার ভোট পেয়ে বড় ব্যবধানেই নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী আওয়ামী লীগ সমর্থিত পংকজ কুমার কুন্ডু ৫৩ হাজার ৩৪৬ ভোট পেয়েছিলেন। ভোটের এই ব্যবধান থেকে বুঝা যায়, আওয়ামী লীগের জন্যে জয় পাওয়া মোটেও সহজ নয়।
অনেকদিন ধরেই মাগুরা জেলা এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ে সমন্বয়হীনতা চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। দলীয় কমান্ড বলে এখন আর কিছু নেই । যে যেভাবে যা পারছেন তাই করছেন। অন্তকোন্দলও এখন সর্বত্র। সর্বশেষ মাগুরা সদর আসনের উপনির্বাচনেও জনৈক বিদ্রোহী প্রার্থী দলীয় নির্দেশ অমান্য করে নির্বাচন করার সাহস দেখান। এদিকে সমন্বয়হীনতা আর অন্তকোন্দলের কারণে জেলার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দুজন নেতা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএস আকবর এমপি এবং শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, কিংবদন্তী মুক্তিযোদ্ধা আকবরবাহিনীর প্রধান আকবর হোসেন মারা গেলেও দলের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত শোকসভার আয়োজন পর্যন্ত করা হয়নি। আওয়ামী লীগের মাঠপর্যায়ের নিবেদিত কর্মীরা মনে করেন-সমন্বয়হীনতা আওয়ামী লীগকে ভোটের রাজনীতিতে ক্রমশই দুর্বল করছে। বিষয়টি জেলার গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের গুরুত্বসহকারে ভাবতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo_image
সম্পাদক: জাহিদ রহমান
নির্বাহী সম্পাদক: আবু বাসার আখন্দ
প্রকাশক:: জাহিদুল আলম
যোগাযোগ:
পৌর সুপার মার্কেট ( দ্বিতীয় তলা), এমআর রোড, মাগুরা।
ফোন: ০১৯২১১৬১৬৮৭, ০১৭১৬২৩২৯৬২
ইমেইল: maguraprotidin@gmail.com