প্রথম পাতা » সংবাদ প্রতিদিন » গুলিবিদ্ধ শিশু ও মা নাজমার পাশে সাইফুজ্জামান শিখর

গুলিবিদ্ধ শিশু ও মা নাজমার পাশে সাইফুজ্জামান শিখর

গুলিবিদ্ধ শিশু ও মা নাজমার পাশে সাইফুজ্জামান শিখর

নিজস্ব সংবাদদাতা: ২৩ জুলাই মাগুরার দোয়ারপাড়ে গুলিবিদ্ধ নাজমা বেগম এবং তাঁর শিশুকে দেখতে গতকাল সোমবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান প্রধানমন্ত্রীর সহকারি একান্ত সচিব সাইফুজ্জামান শিখর। দুপুর বারোটায় তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গুলিবিদ্ধ শিশু এবং তাঁর মা নাজমা বেগমের চিকিৎসার সার্বিক খোঁজখবর নেন। নাজমা বেগম এবং তাঁর গুলিবিদ্ধ শিশুসন্তান যাতে দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠে এ জন্যে তিনি সব ধরনের সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দেন। তাৎক্ষণিভাবে চিকিৎসাধীন নাজমা বেগমের জন্যে ডাবল ডায়েটসহ অন্যান্য সুবিধারও ব্যবস্থা করেন। এদিকে সাইফুজ্জামান শিখরকে কাছে পেয়ে গুলিবিদ্ধ নাজমা বেগম বেশ আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি ঘটনার বিচার দাবি করেন।

সাইফুজ্জামান শিখর মাগুরা প্রতিদিন ডটকমকে বলেন, মাগুরায় যে ঘটনা ঘটেছে তা শুধু নিন্দনীয় নয়, চরম অমানবিকতার বহিঃপ্রকাশ। কোনোভাবেই এধরনের ঘটনা কাম্য নয়। পৃথিবীতে আসার আগেই মায়ের পেটে শিশু গুলিবিদ্ধ হবে এটি মেনে নেওয়ার বিষয় হতে পারে না। সুতরাং যারা এই ঘটনার সাথে জড়িত তাদেরকে অবশ্যই বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। এ ব্যাপারে একবিন্দু ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি বলেন, গুলিবিদ্ধ শিশু এবং মা নাজমাকে সুস্থ করতে জেলা পুলিশ সুপারসহ স্থানীয় প্রশাসন মানবিক দায়িত্ববোধ পালনের অনন্য এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তিনি নিজেও ঘটনা শোনার পর তাঁদের সুচিকিৎসায় প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেন। মা ও শিশুর চিকিৎসায় সামান্যতম গাফলতি যাতে না হয় সেটা তিনি নিজেই নজরদারিতে রেখেছেন। মা ও শিশু সুস্থ হয়ে না ওঠা পর্যন্ত তাঁর পক্ষ থেকে সমস্ত ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

এদিকে মাগুরার দোয়ারপাড়ের ঘটনাটি বহুদিন ধরে জমে থাকা সামাজিক দ্বন্দ্বের বহিঃপ্রকাশ বলে জানা গেছে। সামাজিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করেই গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। ঘটনার সাথে জড়িতরা মাগুরার আদি অধিবাসী বলে পরিচিত কেউই নন। নোয়াখালী অঞ্চল থেকে মাগুরায় সেটেল হওয়া পরিবারগুলোর মধ্যেকার বিরোধই সহিংস ঘটনার জন্ম দেয়। এদিকে দুটি পক্ষের গোলাগুলিকে কেন্দ্র করে গর্ভের শিশু গুলিবিদ্ধ এবং একজন নিহত হবার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার হওয়া চার আসামিকে আজ মঙ্গলবার মাগুরার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারাহ মামুনের আদালতে হাজির করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রধান আসামি সেন সুমনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত আগামি রবিবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন। এর আগে সুমন হোসেন এবং সোবাহান নামে আরো দুই জনের ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo_image
সম্পাদক: জাহিদ রহমান
নির্বাহী সম্পাদক: আবু বাসার আখন্দ
প্রকাশক:: জাহিদুল আলম
যোগাযোগ:
পৌর সুপার মার্কেট ( দ্বিতীয় তলা), এমআর রোড, মাগুরা।
ফোন: ০১৯২১১৬১৬৮৭, ০১৭১৬২৩২৯৬২
ইমেইল: maguraprotidin@gmail.com