প্রথম পাতা » Featured » ঢাকা মোহামেডানের খেলোয়াড় মাগুরার রাজিব সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত

ঢাকা মোহামেডানের খেলোয়াড় মাগুরার রাজিব সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত

ঢাকা মোহামেডানের খেলোয়াড় মাগুরার রাজিব সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত

আনোয়ার হোসেন শাহীন : ‘মাঠ কাঁপানো ফুটবলার ছিল তরুণ রাজিব (১৮)। পুরোনাম রাজিবুল ইসলাম মুসল্লী। চারদিক ছড়িয়ে পড়েছিল রাজিবের নাম। ঢাকা মোহামেডানের জুনিয়র টিমে খেলত সে। জাতীয় দলে খেলা চিল সময়ের ব্যাপার মাত্র। সড়ক দূর্ঘটনা তাঁর সব স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দেয়।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজবাড়ি জেলার গোয়ালন্দে মাহেন্দ্র টেম্পু- বাস মুখোমুখি সংঘর্ষে টেম্পুর যাত্রি রাজিব নিহত হয় । এ ঘটনায় চালক মারা যান। মাহেন্দ্র যাত্রি রাজিবের বন্ধু ফুটবলার বিজয় (১৮) ও বিপুল গুরুতর আহত হয়। মাহেন্দ টেম্পুতে চড়ে তারা মানিকগঞ্জে ফুটবল ম্যাচ খেলতে যাচ্ছিল। নিহত রাজিবের বাড়ি মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার সদরে। সে ওই এলাকার তোতা মুসল্লীর ছেলে।

সন্ধ্যা ছয়টার দিকে রাজিবের গ্রামের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, শতশত নারী পুরুষের ভিড়। স্বজনদের আহাজারি মা বেবি খাতুন কিছুক্ষণ পর জ্ঞান হারাচ্ছেন। আবার সজ্ঞা ফিরে পেয়ে রাজিবকে নিয়ে অনবরত বিলাপ করছেন।

ঝুপড়ি টিনের ছোট ঘর রাজিবদের। বাবা তোতা মুসল্লী চা বিক্রি করে কোনমতে সংসার চালান। এই ছেলে একদিন বড় ফুটবলার হবে তোতা মিয়ার আশা ছিল।  তিন ভাই তিন বোনের সংসারে রাজিব দ্বিতীয়। স্থানীয় আমিনুর রহমান কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল রাজিব। ফুটবলই ছিল তার ধ্যান-জ্ঞান।

রাজিবের মা বেবি  খাতুন বিলাপ করতে করতে বলেন,‘আমার মনি কতো মা আর দ্ইু বছরmagura-razib-pic-04 অপেক্ষা কর। তোমাগের কোন অভাব থাকবে না। আমি বল খেলে অনেক টাকা আয় করব। তোমাগের জন্যি নতুন ঘর তুলে দেব।’

রাজিবের বাবা তোতা মুসল্লী বলেন ,‘আমার মনিরে আমি গোপনে ভালো খাবার খাওয়াতাম। ভালো না খালি খেলবি কেমনে। সারা দেশে খেলতি যাতো। খেলা হলি তারে হায়ের করে নিয়ে যেত।খেলে আমার হাতে টাকা দিতো। লোকজন কতো আপনার রাজিব বড় প্লেয়ার হবি। আমার সব শেষ হয়ে গেল।

মহম্মদপুর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান কাবুল বলেন, রাজিব তরুণ সম্ভাবনাময় খেলোয়াড় ছিল। সে ঢাকা মোহামেডান ক্লাবের জুনিয়র  টিমে কয়েক মৌসুম নিয়মিত খেলছিল। সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিল রাজিব। বাফুফের হয়ে স্কুল ও বয়েস ভিত্তিক বিভিন্ন টূর্ণামেন্টে সে অংশ নেয়।

মঙ্গলবার বেলা ১টার রাজবাড়ি  সদর উপজেলার বসন্তপুর ইউনিয়নে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের মজলিশপুর এলাকায়  বাস ও মাহেন্দ্রের মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই দু’জন নিহত হয়।

নিহতদের মধ্যে ফুটবলার রাজিব ও গোয়ালন্দ উপজেলার কুমড়াকান্দির এলাকার বেলায়েত হোসেনের ছেলে মাহেন্দ্র চালক সাগর বিশ্বাসের (৩৫)।

স্থানীয় সূত্রে জান যায়, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা গোল্ডেন লাইন পরিবহনের একটি বাস পিরোজপুরের দিকে যাচ্ছিল। এসময় ফরিদপুর থেকে আসা একটি মাহেন্দ দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের ওই অংশে পৌঁছালে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মাহেন্দ্র টেম্পুতে চড়ে রাজিব তার দুই বন্ধু বিজয় ও বিপুল মানিকগঞ্জে একটি ফুটবল টূর্ণামেন্টে খেলতে যাচ্ছিল। বিজয় ও বিপুলকে গুরুতর আহত অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের দুইজনের বাড়ি মহম্মদপুর উপজেলা সদরে।

রাজবাড়ি জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) জিহাদুল কবির ও হতাহতের স্বজনদের কাছ থেকে  এসব তথ্য জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo_image
সম্পাদক: জাহিদ রহমান
নির্বাহী সম্পাদক: আবু বাসার আখন্দ
প্রকাশক:: জাহিদুল আলম
যোগাযোগ:
পৌর সুপার মার্কেট ( দ্বিতীয় তলা), এমআর রোড, মাগুরা।
ফোন: ০১৯২১১৬১৬৮৭, ০১৭১৬২৩২৯৬২
ইমেইল: maguraprotidin@gmail.com