প্রথম পাতা » Featured » বেগম জিয়ার ১৩ দফা অযৌক্তিক, অবাস্তব, অসাংবিধানিক -তথ্যমন্ত্রী

বেগম জিয়ার ১৩ দফা অযৌক্তিক, অবাস্তব, অসাংবিধানিক -তথ্যমন্ত্রী

বেগম জিয়ার ১৩ দফা অযৌক্তিক, অবাস্তব, অসাংবিধানিক -তথ্যমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিবেদক: বেগম জিয়ার ১৩দফা প্রস্তাবকে সকল বিবেচনায় অযৌক্তিক, অবাস্তব, অসাংবিধানিক ও অস্বাভাবিক বলে প্রত্যাখ্যান করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য অধিদফতরে বিএনপিনেত্রী খালেদা জিয়ার শুক্রবার উত্থাপিত ‘নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন ও এর কাঠামো’ সম্পর্কে ১৩ দফা প্রস্তাবনার প্রতিক্রিয়ায় সংবাদ সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী সুষ্পষ্টভাবে বলেন, ‘বেগম জিয়া তার প্রস্তাবে ‘সকল রাজনৈতিক দল’ শব্দটির আড়ালে জামাতসহ স্বাধীনতাবিরোধী, যুদ্ধাপরাধী এবং বঙ্গবন্ধুর খুনীদের দল ফ্রীডম পার্টিকে হালাল করতে চান।

‘সর্বসম্মতিক্রমে’ ও ‘ঐকমত্যে’র ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশনের জন্য ‘অভিন্ন নাম’ খুঁজে বের করতে ‘বারবার আলোচনা’র নামে নির্বাচন কমিশন গঠনকেই তিনি অনির্দিষ্টকালের অনিশ্চয়তায় ঠেলে দিতে চান। এতে করে নির্বাচনের নির্ধারিত সময় পার করে খালেদা জিয়া দেশে সাংবিধানিক শূন্যতা তৈরির চক্রান্তে লিপ্ত।’ ‘আর সেকারণেই অসৎ উদ্দেশ্যে বেগম জিয়ার এই চক্রান্তের প্রস্তাব কোনো আলোচনারই সূত্র বা ভিত্তি হতে পারে না’, বলেন মুক্তিযোদ্ধা ইনু।

তথ্যমন্ত্রী স্মরণ করিয়ে দেন, ‘আমরা বারবার বলেছি, বেগম জিয়ার আসল এজেন্ডা নির্বাচন না। তিনি দেশে অনিশ্চয়তা ও সাংবিধানিক শূন্যতা সৃষ্টি করে দেশকে সংবিধানের বাইরে ঠেলে দিয়ে অস্বাভাবিক অসাংবিধানিক সরকার আনার অপপ্রয়াসেই লিপ্ত আছেন। তার আসল উদ্দেশ্য যুদ্ধাপরাধী ও জঙ্গিদের রক্ষা করা এবং নিজের ও পুত্রের বিরুদ্ধে চলমান বিচার কার্যক্রম বন্ধ করা।’

বিএনপি নেত্রী তার প্রস্তাবে জঙ্গিবাদ মোকাবিলার বিষয়টি সম্পূর্ণ এড়িয়ে গেছেন উল্লেখ করে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘দেশের ১৬ কোটি মানুষ জঙ্গিবাদকে দেশের এই মূহূর্তের সবচেয়ে বড় বিপদ হিসেবে চিহ্নিত করলেও তিনি তার প্রস্তাবনায় জঙ্গিবাদের বিষয় সম্পূর্ণ এড়িয়ে গেছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার, প্রশাসন, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, দেশবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে জঙ্গিবাদ বিরোধী অভিযানকে যখন বিজয়ের দিকে নিয়ে যাচ্ছে তখন বেগম জিয়া এই প্রস্তবনা জঙ্গিবাদীদের রক্ষার এক নতুন কৌশল ছাড়া আর কিছুই নয়।’ এসময় বেগম জিয়ার জনপ্রতিনিধিত্ব আদেশ সংশোধন করে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সাথে প্রতিরক্ষা বাহিনীকে যুক্ত করা এবং প্রতিরক্ষা বাহিনীর হাতে বিচারিক মতামত প্রদান করার প্রস্তাব মূলত প্রতিরক্ষা বাহিনীকে বিতর্কিত করার অপপ্রয়াস বলে বর্ণনা করেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সময়ে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সাহায্যের জন্য প্রতিরা বাহিনীর প্রয়োজন হলে নির্বাচন কমিশন প্রতিরক্ষা বাহিনীকে তলব করতে পারে। কিন্তু প্রতিরক্ষা বাহিনীকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার অন্তর্ভূক্ত করা’ এবং ‘প্রতিরক্ষা বাহিনীর হাতে মেজিষ্ট্রেসি মতা প্রদানের’ দাবি তোলা প্রতিরক্ষাবাহিনীকে বিতর্কিত করার অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছুই নয়।’

নির্বাচন নিয়ে যেকোন চক্রান্তের বিরুদ্ধে দেশবাসীকে সজাগ থাকার জন্য আহ্বান জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা ও সাংবিধানিক সংকট সৃষ্টির পাঁয়তারার বিরুদ্ধে অতীতের মতই সজাগ সতর্ক থাকার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’ সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্যশেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

তিনি এসময় বেগম জিয়ার ১৩দফা প্রস্তাবের আদ্যোপান্ত বিশ্লেষণের করে বলেন, ‘অযৌক্তিক ও  অসাংবিধানিক এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করা ছাড়া গত্যন্তর নেই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo_image
সম্পাদক: জাহিদ রহমান
নির্বাহী সম্পাদক: আবু বাসার আখন্দ
প্রকাশক:: জাহিদুল আলম
যোগাযোগ:
পৌর সুপার মার্কেট ( দ্বিতীয় তলা), এমআর রোড, মাগুরা।
ফোন: ০১৯২১১৬১৬৮৭, ০১৭১৬২৩২৯৬২
ইমেইল: maguraprotidin@gmail.com