আজ, সোমবার | ১৩ই জুলাই, ২০২০ ইং | বিকাল ৩:০০

ব্রেকিং নিউজ :
মাগুরার রেডজোন থেকে লক ডাউন তুলে দেয়া হলো মাগুরায় পুলিশের এসআই সহ নতুন করে ৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত মাগুরায় আরো একজনসহ করোনা আক্রান্ত মোট ৭ রোগীর মৃত্যু শ্রীপুর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি মাগুরা জেলা কি দরিদ্র-ই থেকে যাবে? শ্রীপুরে নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা প্রদান এমপি সাইফুজ্জামান শিখরের মায়ের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় সাতদোহা আশ্রমে বিশেষ প্রার্থনা এমপি সাইফুজ্জামান শিখরের মায়ের আত্মার শান্তি কামনায় মসজিদে মন্দিরে দোয়া ও প্রার্থনা এমপি শিখরের মায়ের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক এমপি আছাদুজ্জামানের স্ত্রী ও এমপি সাইফুজ্জামান শিখরের মায়ের মৃত্যুতে জাসদের শোক
নাগড়া কৃষি ব্যাংকের আর্থিক দূর্ণীতি প্রমাণিত হওয়ায় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ

নাগড়া কৃষি ব্যাংকের আর্থিক দূর্ণীতি প্রমাণিত হওয়ায় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ

মাগুরা প্রতিদিন ডটকম : সংবাদ প্রকাশের পর মাগুরার নাগড়া কৃষি ব্যাংকের ৩৭ লক্ষ টাকার আর্থিক দূর্নীতির বিষয়টি জেলা প্রশাসনের প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি অর্থ মন্ত্রণালয় এবং সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের যৌথ তদন্তের সুপারিশ করা হয়েছে।

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নাগড়া বাজারের একমাত্র ব্যাংকটি হচ্ছে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক। যেখানে বাবুখালি এবং পার্শ্ববর্তি দিঘা ইউনিয়নের অন্তত ২ হাজার ৩ শত অসহায় বয়স্ক, বিধবা এবং প্রতিবন্ধী মানুষের একাউন্ট রয়েছে। যাদের হিসাবের বিপরীতে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধিন সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে ৫শ থেকে ৭শ টাকা হারে মাসোহারা বরাদ্দ দেয়া হয়ে থাকে। যেটি প্রতি তিনমাস অন্তর বয়স্ক ও বিধবা মহিলারা ১ হাজার ৫ শত টাকা এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা ২ হাজার ১ শত হারে উত্তোলনের সুযোগ পেয়ে থাকেন। কিন্তু নানা চাতুরির মাধ্যমে এই দুটি ইউনিয়নের নিবন্ধিত অসহায় বয়স্ক, বিধবা এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অনুকুলে চলতি অর্থ বছরের জুলাই-আগস্ট-সেপ্টেম্বর এই তিন মাসের ভাতা ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারিরা একেবারেই গায়েব করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠে। এ বিষয়ে মাগুরা প্রতিদিন ডটকম, দৈনিক যুগান্তর, দৈনিক মানবজমিনসহ বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। যে ঘটনার প্রেক্ষিতে মাগুরা জেলা প্রশাসক আতিকুর রহমান প্রশাসনের প্রথম সারির একজন কর্মকর্তাকে বিষয়টি তদন্তের দায়িত্ব দেন।

মাগুরা জেলা প্রশাসনের ওই কর্মকর্তা ভূক্তভোগী ও ভাতাবঞ্চিতদের স্বাক্ষ্যগ্রহণ শেষে সম্প্রতি মাগুরা জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। যেখানে প্রকাশিত সংবাদে তুলে ধরা ব্যাংকটির নানা অসংগতি ও আর্থিক দূর্ণীতির বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে সুপারিশ করা হয়েছে। অন্যদিকে দায়িত্ব পালনে অবহেলার কারণে মহম্মদপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা তাহেরা জেসমিনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরে পত্র প্রেরণ এবং বড় অংকের আর্থিক অনিয়ম দেখা দেওয়ায় বিষয়টির অধিক তদন্তের জন্যে অর্থ মন্ত্রণালয় ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে যৌথ তদন্তের সুপারিশ করা হয়েছে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে সংবাদ প্রকাশের পর থেকেই অভিযুক্ত কর্মকর্তা-কর্মচারি এবং স্থানীয় প্রভাবশালি ব্যক্তিরা মহম্মদপুর উপজেলার দিঘা ও বাবুখালি ইউনিয়নের ভাতাবঞ্চিত অসহায় মানুষগুলোকে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদেরকে স্বাক্ষ্যদানে নিবৃত্ত রাখার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মাগুরা জেলা প্রশাসক আতিকুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে, তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে কিছু বলতে তিনি অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তবে ভাতাভোগি অসহায় মানুষদের নিরাপত্তার শতভাগ নিশ্চয়তা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছেন।

শেয়ার করুন...




©All rights reserved Magura Protidin. 2018-2020
IT & Technical Support : BS Technology