আজ, বুধবার | ২১শে অক্টোবর, ২০২০ ইং | রাত ১০:৫৫

ব্রেকিং নিউজ :
শালিখায় দুস্থ শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার ও আইটি প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন মাগুরায় শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে শিশু একাডেমির আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণী মাগুরায় শেখ রাসেলের জন্মদিনে যুবলীগের পক্ষ থেকে শিশুদের জন্যে জরুরী ঔষধ ও খাবার বিতরণ মাগুরায় বেতন বৃদ্ধির দাবিতে পোস্টাল ইডি কর্মচারিদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ শেখ রাসেলের শুভ জন্মদিন মাগুরায় ৫৮৭ টি মণ্ডপে দুর্গাপূজার আয়োজন চলছে মাগুরায় দুস্থ শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার ও আইটি প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ১০ কোটি টাকার স্বর্ণের বার উদ্ধার সুদে কারবারি মনিরুল হত্যাকাণ্ডে জড়িত তিন কিশোর আটক মাগুরায় আদালতের নির্মাণ কাজ বন্ধ রেখে ১০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার ফন্দি!
করোনা পরীক্ষার জন্য মাগুরাতে বসানো হোক পিসিআর ল্যাব

করোনা পরীক্ষার জন্য মাগুরাতে বসানো হোক পিসিআর ল্যাব

জাহিদ রহমান : সারাদেশে প্রতিদিনই করোনা রুগির সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সর্বশেষ ২৪ মে রবিবার সারাদেশে মোট করোনা রুগি সনাক্ত হয় ১৫৩২ জন। এ পর্যন্ত মোট করোনা রুগি সনাক্ত হয়েছে ৩৩ হাজার ৬১০ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে দুই লাখ ৪৩ হাজার ৫৮৩টি। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মৃতের সংখ্যা ৪৮০ জন। করোনায় মৃত্যু হয়েছে আমলা, পুলিশ, সাংবাদিক থেকে শুরু করে বিভিন্ন পেশাজীবীর মানুষকে।

উল্লিখিত পরিসংখ্যানের চিত্র থেকেই বুঝা যাচ্ছে প্রতিদিনই করোনা পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে। বিশেষ করে গত দুসপ্তাহ ধরে করোনা সংক্রমণের হার খুবই উর্ধ্বমুখী। করোনা সংক্রমণ যে ভাবে বেড়ে চলেছে তাতে করে বুঝা যাচ্ছে ঈদ পরবর্তীতে এই হার আরও বাড়বে বৈ কমবে না। এরকম ভাবার প্রধান কারণই হলো-সামাজিক দূরুত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি যে সব শর্তাবলী ও স্বাস্থ্যবিধির কথা বলা হয়েছিল তা অনেকটাই এখন মানা হচ্ছে না। আবার ঈদের কারণে ঘরমুখী মানুষকে ঠেকাতে না পারাটাও করোনা সংক্রমণকে যে আরও উসকে দেওয়া হয়েছে এতে কোনো সন্দেহ নেই।

ঈদের কয়েকদিন আগে থেকেই সরকারের পক্ষ থেকে কঠোর ও পরিস্কার ভাষায় বলা হয়েছিল যে যেখানে আছেন সেখানেই থাকবেন। ঘরমুখো হবেন না। এরপরেই অসংখ্য মানুষ বাড়িতে যাওয়ার জন্য রওয়ানা হলে দেশের প্রধান দুটি ফেরিঘাট পাটুরিয়া এবং মাওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়। হাজার হাজার মানুষ ফেরিঘাট থেকে ফিরে চলে আসে। কিন্তু এর পরপরই সরকারের একটি সিদ্ধান্ত মানুষের বাড়ি ফেরার তাড়নাটাকে যেন আরও উসকে দেয়। সরকারের পক্ষ থেকে এই মর্মে সিদ্ধান্ত দেওয়া হয় যে ব্যক্তিগত গাড়ি বা মাইক্রোবাসে চড়ে বাড়িতে যাওয়া যাবে। ব্যাস, শুরু হয় মানুষের দলে দলে ঘরে ফেরা। এখন মানুষ যেভাবে বাড়িতে ফিরছে তাতে করে বিশেষজ্ঞরা সামনের দিনে বড় ধরনের বিপর্যয়ের আশংকা করছেন। সেই সম্ভাব্য বিপর্যয় থেকে আমাদের মাগুরাও মুক্ত নয়। কেননা ঢাকা থেকে হাজার হাজার মানুষ মাগুরাতে তার নিজ বাড়িতে ফিরেছে। মাগুরাতে এ পর্যন্ত করোনা রুগি সনাক্ত হয়েছে মোট ১৯ জন। এ পর্যন্ত মোট নমুনা টেস্ট করা হয়েছে ৫১৩ জনের।

মাগুরাতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে বা উপসর্গ নিয়ে কোনো মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। আমি বলবো এটি মাগুরাবাসীর জন্য অবশ্যই একটি স্বস্তিদায়ক সংবাদ। এর আগে যারা করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তারাও সুস্থ হয়ে উঠেছেন। নাকোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ূন উর রশীদ মুহিত, শ্রীকোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাসিম বিল্লাহ সংগ্রাম-এ দুজন করোনা পজিটিভ হলেও তারা সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

সুস্থ হয়ে উঠেছেন মাগুরা সদরের মৃগীডাঙ্গা গ্রামের জীবন বিশ্বাস, শ্রীপুর উপজেলার জোত শ্রীপুরের অনুপ টিকাদারসহ অন্যান্যরা। যারা সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন সবার জন্য অভিনন্দন। আমি মনে করি মাগুরাবাসীর জন্য এসবই ভালো সংবাদ।

মাগুরাতে এখন পর্যন্ত করোনা রুগি সনাক্ত করণ বা টেস্টেও কোনো সুযোগ-সুবিধা গড়ে উঠেনি। করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এমন রুগিদের স্যাম্পল বা নমুনা নিয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ বা যশোর বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরীক্ষা করিয়ে আনতে হয়। খুলনাতে করোনা পরীক্ষা শুরু হয় গত ৫ এপ্রিল থেকে। অন্যদিকে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনোম সেন্টারে শুরু হয় গত ১৮ এপ্রিল থেকে। কিন্তু মাগুরা থেকে যশোর এবং খুলনা দুটি জায়গাই নিকটবর্তী না হওয়ার কারণে ল্যাব টেস্টে করার ক্ষেত্রে বেশ সময়ক্ষেপণ হয়। এই মুহুর্তে তাই খোদ মাগুরা জেলাতেই করোনা পরীক্ষার জন্য পিসিআর ল্যাব বসানোকে জনগণ জরুরি মনে করছে। এখন পর্যন্ত সারাদেশের মোট ৪৭টি ল্যাবে করোনা টেস্ট করা হয়। পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে নিকটবর্তী স্থানে করোনা টেস্টের ব্যবস্থা না থাকার কারণে অনেকেই করোনা উপসর্গ থাকলেও প্রকাশ করতে চান না, নিজেকে লুকিয়ে রাখেন। আবার নিজেও উদ্যোগী হয়ে টেস্ট করাতে আগ্রহ দেখান না। এসব বিষয়কে বিবেচনায় নিয়ে করোনা টেস্টের জন্য মাগুরা সরকারি মেডিকেল কলেজেই পিসিআর ল্যাব (পরিমেরাস চেইন রিঅ্যাকশন) বসানোটা উত্তমজনক সিদ্ধানত বলে বিবেচিত হবে। এটি করা হলো অনেকেই নিজ আগ্রহে নমুনা দিতে চাইবে। এতে করে দ্রুত রুগি সনাক্ত করা এবং তাদের জন্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হবে।

সামনে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আশার সম্ভাবনা খুবই কম। এক্ষেত্রে করোনা সনাক্তকরণ ও চিকিৎসার সক্ষমতা প্রতিটি জেলাতেই বাড়াতে হবে। আমি মনে করি মাগুরাকে করোনা যুদ্ধ থেকে পিছিয়ে থাকার কোনো সুযোগ নেই। একারণে দ্রুত মাগুরা মেডিকেল কলেজে পিসিআর মেশিন বসানো হলে করোনা চিকিৎসা ও প্রতিরোধে মাগুরা জেলা একটা বড় ধরনের সক্ষমতা অর্জন করবে।

মাগুরা ১ আসনের সংসদ সদস্য জনাব সাইফুজ্জামান শিখরের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলবো, মাগুরাতে করোনা টেস্টের জন্য পিসিআর ল্যাব স্থাপনে দ্রুত উদ্যোগ গ্রহণ করুন।
জাহিদ রহমান: সম্পাদক, মাগুরা প্রতিদিন ডটকম

শেয়ার করুন...




©All rights reserved Magura Protidin. 2018-2020
IT & Technical Support : BS Technology